সশস্ত্র বাহিনী সদস্যদের মাঝে কোরআন বিতরণ

কোরআন বিতরণ সংবাদ: প্রথম পর্ব

0
432

আল কোরআন একাডেমী লন্ডন কর্তৃক সশস্ত্র বাহিনী সদস্যদের মাঝে কোরআন বিতরণ

গত ১৩ অক্টোবর (2008) ঢাকা সেনানিবাসে একটি অনাড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সেনা সদস্যদের ‘কোরআন শরীফ ঃ সহজ সরল বাংলা অনুবাদ’ তুলে দেন আল কোরআন একাডেমী লন্ডনের ডাইরেক্টর জেনারেল হাফেজ মুনির উদ্দীন আহমদ। আল কোরআন একাডেমীর পক্ষ থেকে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হলেন একাডেমীর ডাইরেক্টর জেনারেল হাফেজ মুনির উদ্দীন আহমদ। একাডেমীর ডাইরেক্টর লন্ডন প্রবাসী খ্যাতনামা সাহিত্যিক মোহতারামা খাদিজা আখতার রেজায়ীও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের অভ্যন্তরীণ একটি সভা কক্ষে শুরু হয় মূল অনুষ্ঠান। লেফটেনেন্ট কর্ণেল মাইন উল্যাহর সংক্ষিপ্ত বক্তব্যের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানটি শুরু হয়। এতে বক্তব্য রাখেন একাডেমীর ডিজি হাফেজ মুনির উদ্দীন আহমদ ও সশস্ত্র বাহিনীর প্রিন্সিপ্যাল স্টাফ অফিসার জেনারেল মোঃ আবদুল মুবীন। জনাব মুনির উদ্দীন আহমদ বলেন শ্রেষ্ঠ কিতাব কোরআনুল কারীমে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন মানব জাতির কর্মসূচী নির্ধারণ করে দিয়েছেন। প্রতিটি মানুষের উচিৎ এই কোরআন থেকে নিজেদের জীবনের, দেশ ও সমাজের কর্মসূচী খুঁজে বার করা। তিনি বলেনÑ আমাদের গৌরবময় সেনাবাহিনী দেশে বিদেশে যেমনি সুনাম কুড়িয়েছে তেমনি দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব এবং সার্বিক সংকটকালে অতন্দ্র প্রহরী হিসেবেও দেশের জন্যে কাজ করছে। এদেশের মানুষ চায় তারা যেন কোরআনেরও প্রহরী হিসেবেও তাদের ভূমিকা রাখেন। জেনারেল মুবিন এই মহতি উদ্যোগটি বাস্তবায়নে সশস্ত্র বাহিনীর মাধ্যমে শুভ সূচনা করার জন্যে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, সশস্ত্র বাহিনীতে আমরা রুটিনমাফিক জীবনযাপন করি। এর মধ্যে ধর্ম চর্চাও রয়েছে। এখানে বেশীরভাগ সদস্য মুসলিম, অন্যান্য ধর্মের অনুসারীও সশস্ত্র বাহিনীতে রযেছে। আমরা ধর্মীয় চর্চাও একটা রুটিনের মাধ্যমে করে থাকি।
আমি এই কর্মসূচীর উদ্যোক্তাদের আশ্বস্ত করে বলতে চাই, এই উদ্যোগের যে সূচনা আল কোরআন একাডেমী আমাদের মাধ্যমে করেছেন সেটাকে স্বার্থক করার জন্য আমরা চেষ্টা করবো। আমি মনে করি সশস্ত্র বাহিনীর সকল সদস্যই স্ব উদ্যোগে এ ব্যাপারে আগ্রহী হবেন। এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে যে উদ্যোগ আজ গ্রহন করা হয়েছে তা যেন এখানেই শেষ না হয়ে যায়। এর উদ্দেশ্য হবে কোরআনের শিক্ষা এবং এর সুফল যেন মানবজাতি পেতে পারে সে ব্যাপারে যেন সবাই সচেতন হয়, তাহলে এর উদ্দেশ্য সফল হবে।
অনুষ্ঠানে সেনা নৌ ও বিমান বাহিনীর সিনিয়র অফিসাররা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান আয়োজনে বিশেষ ভূমিকা রাখেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবদুস সামাদ ও ক্যাপ্টেন হুমায়ুন কবীর।
সেনা সদরের নিয়মতান্ত্রিক পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে সশস্ত্রবাহিনী বিভাগের সিনিয়র অফিসার ও আল কোরআন একাডেমীর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে জেনারেল মুবীনের হাতে একাডেমীর ডাইরেক্টর জেনারেল আনুষ্ঠানিকভাবে অনুবাদসহ একটি কপি কোরআন হস্তান্তরর করেন এবং উপস্থিত ৩০জন অফিসারকে তাৎক্ষণিকভাবে তাদের কপি বিতরণ করা হয়। সর্বমোট ১০ হাজার কপির আরো দুটি চালান পরে শিক্ষা বিভাগের মাধ্যমে সশস্ত্র বাহিনীকে দেয়া হয়। দেশের ছোটো বড়ো প্রায় সব সংবাদপত্র এই সংবাদটি গুরুত্বসহ প্রচারিত হয়। এই ১০ হাজার কোরআন ৬জন সহৃদয় ব্যক্তি ¯ক্সন্সর করেছেন। ¯ক্সন্সর পাওয়া গেলে পুলিশ, র্যা ব, বিডিআর, আনসার, গোয়েন্দাসংস্থাসহ অন্যান্য নিয়মিত বাহিনীকে কোরআন দেয়ার পরিকল্পনা একাডেমীর রয়েছে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY