মহানবী (স) : নবুয়তের আগের জীবন

0
256

মহানবী (স) নবুয়তের আগের জীবন

তিনি ছিলেন স্বচ্ছ চিন্তা-চেতনা, দূরদর্শিতা, সত্যপ্রিয়তার এক সুউচ্চ মিনার। চিন্তার পরিচ্চন্নতা, পরিপক্বতা, উদ্দেশ্য ও লক্ষ্যের পবিত্রতা তাঁর মধ্যে পূর্ণ মাত্রায় বিদ্যমান ছিলো।

দীর্ঘ সময়ের নীরবতায় তিনি সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে আল্লাহর সাহায্য পেতেন। পরিচ্ছন্ন, মার্জিত, সুন্দর বিবেক বুদ্ধি, উন্নত স্বভাব ও দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে তিনি মানুষের জীবন, বিশেষত জীবনের বিভিন্ন সমস্যা সম্পর্কে গভীরভাবে ধ্যান করেছিলেন।

তিনি কখনো মদ মুখে লাগাননি, পূজার বেদীতে জবাই করা পশুর গোশত খাননি, মূর্তির জন্যে আয়োজিত উৎসব, পার্বণ, মেলা ইত্যাদিতেও কখনোই অংশ গ্রহণ করেননি। শুরু থেকেই তিনি মূর্তি নামের বাতিল উপাস্যদের অত্যন্ত ঘৃণা করতেন। এতো বেশি ঘৃণা অন্য কিছুর প্রতি তাঁর ছিলো না। এছাড়া লাত এবং ওযযার নামে শপথ শোনাটাও তিনি পছন্দ করতেন না।

 

নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর প্রশংসনীয় কাজ, উন্নত চরিত্র বৈশিষ্ট্য এবং দয়ালু স্বভাবের কারণে স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যমন্ডিত ছিলেন। তিনি ছিলেন সকলের চেয়ে অধিক মানবীয় সৌজন্যবোধসম্পন্ন, সবার চেয়ে উত্তম চরিত্রের অধিকারী, সম্মানিত প্রতিবেশী, সর্বাধিক দূরদর্শিতাসম্পন্ন, সকলের চেয়ে অধিক সত্যবাদী, সকলের চেয়ে কোমলপ্রাণ ও সর্বাধিক পবিত্র পরিচ্ছন্ন মনের অধিকারী। ভালো কাজে ভালো কথায় তিনি ছিলেন সকলের চেয়ে অগ্রসর এবং প্রশংসিত। অংগীকার পালনে ছিলেন সকলের চেয়ে অগ্রণী, আমানত রক্ষায় তিনি ছিলেন অতুলনীয়। এমনকি স্বজাতির লোকেরা তাঁর নামই আল-আমিন রেখেছিলেন। তাঁর মধ্যে ছিলো প্রশংসনীয় গুণ বৈশিষ্ট্যের সমন^য়। হযরত খাদিজা (রা.) সাক্ষ্য দিয়েছেন, তিনি বিপদগ্রস্তদের বোঝা বহন করতেন, দুঃখী দরিদ্র লোকদের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়াতেন, মেহমানদারী করতেন এবং সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার কাজে সাহায্য করতেন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY