নবী পরিবার পরিজন: স্ত্রী ও সন্তান

0
973

নবী পরিবার পরিজন: স্ত্রী ও সন্তান

 

হযরত খাদিজা (রা.)

হযরত খাদিজা (রা.) নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লামের প্রথমা স্ত্রী। তাঁর জীবষ্কশায় নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম অন্য কোনো বিয়ে করেননি।

হযরত সাওদা বিনতে যামআ

নবুয়তের দশম বছরের শওয়াল মাসে হযরত সাওদা বিনতে যাময়া (রা.)-এর সাথে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন।

 

হযরত আয়েশা বিনতে আবু বকর (রা.)

নবুয়তের একাদশ বর্ষের শাওয়াল মাসে হযরত আয়শা বিনতে আবু বকর (রা.)-এর সাথে নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লামের বিয়ে হয়। নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম হযরত আয়েশা (রা.) ব্যতীত অন্য কোনো কুমারী মেয়েকে বিয়ে করেননি। উম্মতে মোহাম্মদীর মধ্যে তিনি ছিলেন সর্বাধিক জ্ঞানসম্পন্ন ফকীহ।

হযরত হাফসা বিনতে ওমর (রা.)

নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম ত™£তীয় হিজরী সালে তাঁর সাথে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন।

 

হযরত যয়নব বিনতে খোযায়মা (রা.)

তিনি ছিলেন বনু হেলাল ইবনে আমের ইবনে সাসা গোত্রের সাথে সম্পর্কিত। গরীব মিসকিনদের প্রতি তাঁর অসামান্য মমত্ববোধ এবং ভালোবাসার কারণে তাঁকে উম্মুল মাসাকিন উপাধি প্রদান করা হয়। নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম চতুর্থ হিজরীতে তাঁর সাথে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন।

উম্মে সালামা হেন্দ বিনতে আবী উমাইয়া (রা.)

তিনি আবু সালামা (রা.)-এর স্ত্রী ছিলেন। চতুর্থ হিজরী সালের শাওয়াল মাসে রসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম তাঁর সাথে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন।

যয়নব বিনতে জাহশ ইবনে রিয়াব (রা.)

তিনি ছিলেন বনু আসাদ ইবনে খোযায়মা গোত্রের মহিলা এবং রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লামের ফুফাতো বোন। হযরত যয়নবের সাথে পঞ্চম হিজরীর যিলকদ মাসে বা এর কিছু আগে রসূল (স.)-এর বিয়ে হয়।

জুয়াইরিয়া বিনতে হারেস (রা.)

তার পিতা ছিলেন খোযায়া গোত্রের শাখা বনু মোস্তালেকের সর্দার। এটা পঞ্চম হিজরীর শাবান মাসের ঘটনা।

 

উম্মে হাবিবা রামলা বিনতে আবু সুফিয়ান (রা.)

তিনি ছিলেন ওবায়দুল্লাহ ইবনে জাহশের স্ত্রী। সপ্তম হিজরীর মহররম মাসে প্রিয়নবীর সাথে বিবাহ হয়।

. হযরত সফিয়া বিনতে হুয়াই (রা.)

তিনি ছিলেন বনী ইসরাঈল সম্পন্দদায়ের এবং খায়বারে বন্দী হন। নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম মুক্ত করে দিয়ে তার সাথে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন। সপ্তম হিজরীতে খায়বার বিজয়ের পর এ বিয়ে সম্পন্ন হয়।

হযরত মায়মুনা বিনতে হারেস (রা.)

তিনি ছিলেন উম্মুল ফযল লোবাবা বিনতে হারেসের বোন। সপ্তম হিজরীর যিলকদ মাসে ষ্ক্রকাযা ওমর্ াশেষ করে, সঠিক অভিমত অনুযায়ী এহরাম থেকে হালাল হওয়ার পর নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম তাকে বিয়ে করেন।

মারিয়া কিবতিয়া: মিসরের শাসনকর্তা মোকাওকিস তাকে উপঢৌকন হিসাবে প্রেরণ করেন। তার গর্ভ থেকে রসূল (স.)-এর পুত্র হযরত ইবন্দাহীম জন্ম নেন। তিনি দশম হিজরীর ২৮ অথবা ২৯ শে শাওয়াল মোতাবেক ৬৩২ ঈসায়ী সালের ২৭ শে জানুয়ারী ইন্তেকাল করেন।

রায়হানা: তিনি বনু নযির বা বনু কোরায়যা গোত্রভুক্ত। যুদ্ধবন্দীদের সাথে তিনি মদীনায় আসেন। রসূল (স.) রায়হানাকে পছন্দ করে নিজের নিয়ন্ত্রণে রাখেন। তাঁর সম্পর্কে গবেষকদের ধারণা হড়ে–, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম তাকে দাসী হিসাবে রাখেননি; বরং মুক্ত করে বিয়ে করেন।

সন্তান:

তাঁর সন্তানদের মধ্যে একমাত্র হযরত ইবন্দাহীম ছাড়া অন্য সবাই ছিলেন বিবি খাদিজার গর্ভজাত। পুত্রদের মধ্যে কেউই জীবিত ছিলেন না। তবে কন্যারা জীবিত ছিলেন। তাঁদের নাম হড়ে– হযরত যয়নব, হযরত রোকায়া, হযরত উম্মে কুলসুম এবং হযরত ফাতেমা (রা.)। যয়নবের বিয়ে হিজরতের আগে তাঁর ফুফাতো ভাই হযরত আবুল আস ইবনে রবির সাথে হয়েছিলো। রোকায়া এবং উম্মে কুলসুমের বিয়ে পর্যায়ক্রমে হযরত ওসমান (রা.)-এর সাথে সম্পন্ন হয়। হযরত ফাতেমা (রা.)-এর বিয়ে বদর এবং ওহুদ যুদ্ধের মাঝামাঝি সময়ে হযরত আলী ইবনে আবু তালেব (রা.)-এর সাথে হয়। তাঁদের চার সন্তান হলেন হযরত হাসান, হযরত হোসাইন, হযরত যয়নব এবং হযরত উম্মে কুলসুম (রা.)।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY