হজ্জযাত্রী ১ লাখ ১ হাজার ৭৫৮জন , সরকারী খরচে সুযোগ পেলেন ২৬৩ জন

0
301

জুমাবার, ঢাকা:  ঢাকা, এবার বাংলাদেশে থেকে সরকারি ও বেসরকারি হজ্জ এজেন্সীর মাধ্যমে মোট ১ লাখ ১ হাজার ৭৫৮জন হজ্জ যাত্রী বিমানে হজ্জ করতে যাবেন। এবারের হজ্জ ফ্লাইট গত ১৬ আগস্ট থেকে শুরু হয়েছে মধ্যে অধিকাংশ হাজী সৌদিআরব পেীছেন।। বাংলাদেশ বিমান এয়ার লাইন্স ও সাউদিয়া এয়ার লাইন্স এবার হজ্জ যাত্রী পরিবহণ করছে। ধারণা করা হচ্চে সৌদিআরব সহ বিভিন্ন দেশ থেকে আরো কয়েক হাজার বাংলাদেশী হজ্জযাত্রায় শামিল হবেন।

ঢাকায় আশকোনা হজ্জক্যম্পে গিয়ে দেখা গেছে হাজীদের নানাসেবা দানে ব্যস্ত কর্মীদের কর্মততপরতা। প্রতিবছরের মতো এবারো হাজীদের সেবা করছে বাংলাদেশ স্কাইট রোভার অঞ্চল ও চট্টগ্রামের হাজী গোলামরসূল ট্রাস্ট। এছাড়া বাংলাদেশ পুলিশ, ল্রাব, আনসার, ডিবি ও বিমান কর্মীরা কাজ করছেন। হজ্জযাত্রীদে বিশুদ্ধপানি খাওয়াচ্চে একটি কেম্পানী। এছাড়া প্রতি বছরের ন্যায় এবারও হজ্জ ক্যাম্পে কোরআন বিতরণ করেছে আল কোরআন একাডেমী লন্ডন।

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের তথ্য কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন সাংবাদিকদের জানান,
এরমধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় এবার হজে যাচ্ছেন মাত্র ৩ হাজার হাজী। বাকী সবই বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় যাচ্ছেন। আনোয়ার হোসেন জানান, সরকারি ব্যবস্থাপনায় এবার ১০ হাজার ব্যক্তির হজ্জ পালন করার কথা ছিল।এদিকে দৈনিক ইনকিলাব জানিয়েছে সরকারী দলের সমর্থন বিবেচনা এবং ধর্মমন্ত্রীর এলাকা থেকে পরিচিতি ভিত্তিতে বাছাই করে ২৬৩ জন সরকারী খরচে হজ্জে যাচ্চেন। এনিয়ে সমালোচনা হচ্চে বিভিন্ন মহলে। একদিকে এই সংখা অন্যান্য বছরের তুলনায় দ্বিগুন, অন্যদিকে স্বজনপপীতির কারণে প্রকৃত লোকেরা বঞ্চিত হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও আলেমদের একটা অংশ মনে করেন , হজ্জ যার সামর্থ আছে তার জন্য ফরয, যার সামর্থ নেই সরকারী খরচে তার জন্য হজ্জ করা জরুরী নয়। সউদী আরবে চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ২২ সেপ্টেম্বর এবারের পবিত্র হজ্জ অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

অন্যান্য বছরের তুলনায় হজ্জ নিয়ে বাংলাদেশে নানা অনিয়ম এর সংবাদ এবার তেমন নেই। সর্বশেষ 732 জন হজ্জযাত্রীর হজ্জে যাওয়া নিয়ে যে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে তা সমাধান করতে চেষ্টা করছে সরকার। আর কিছু সংখ্যক হজ্জযাত্রীর পার্সপোর্ট খোয়া যাওয়ার কারণে তাদের হজ্জ করা নিয়ে যে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে তা এখনো কাটেনি। সরকার সুষ্ঠুভাবে পবিত্র হজ্জ কার্যক্রম ব্যবস্থাপনার জন্য ৩৫ সদস্যের একটি প্রশাসনিক প্রতিনিধি দল, একটি মেডিকেল টিম, একটি আইটিটি প্রতিনিধি দল ও একটি সরকারি হজ্জ প্রতিনিধি দল প্রেরণ করবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

ঢাকা আশকোনা হজ্জ ক্যাম্পে কর্মরত হজ্জ কর্মকর্তা জনাব আবদুল মালেক জানান সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টায় এ বছর বড় ধরনের কোনো সমস্যা ছাড়াই হজ্জযাত্রীরা বিমানে উঠতে পারছেন। আর হজ্জক্যাম্পে বিভিন্ন স্বেচ্চাসেবি সংগঠনসহ সরকারী বাহিনীর সদস্যসার হজ্জযাত্রীদের সেবায় সার্বক্ষনিক কর্মরত আছেন।

তবে বিভিন্নসূত্রে অভিযোগ রয়েছে 5 হাজার মুসল্লি টাকা জমা দিয়েও হজ্জে যেতে পারছেনা। সরকারীভাবে 10 হাজার এর মধ্যে এখনো 1900 হজ্জযাত্রীর কোটা খালি আছে বলে জানিয়েছে হজ্জ অফিস। এদিকে বঞ্চিত হজ্জ যাত্রীরা বিক্ষোভ করেছেন গত শনিবার হজ্জ ক্যাস্পের সামনে। এ অনিয়মে ধর্ম মন্ত্রণালয় ও হজ অফিসের শীর্ষ কর্মকর্তারা জড়িত বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে বঞ্চিত এজেন্সিগুলোর দু-একজন নেতাও শেষ পর্যন্ত অনিয়মে জড়িয়ে পড়েন বলে সন্দেহ করছেন খোদ বঞ্চিত এজেন্সি মালিকেরা। হজযাত্রীদের কোটা, রিপ্লেসমেন্ট ও ডিও ইস্যু নিয়ে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে হজ অফিসের পরিচালক ড. আবু সালেহ মোস্তফা কামালকে শোকজ এবং সহকারী হজ অফিসার আব্দুল মালেককে তাৎক্ষণিক প্রত্যাহার করেছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। ড. আবু সালেহকে চলতি বছরের হজ প্রশাসনিক দল থেকেও বাদ দেয়া হয়েছে। একই সাথে পুরো বিষয়টি তদন্তে একটি কমিটি গঠনও প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। অপেক্ষমাণ হজযাত্রীদের পাঠানোর শেষ চেষ্টার অংশ হিসেবে নির্ধারিত কোটা ১ লাখ ১ হাজার ৭৫৮ জনের অতিরিক্ত আরো ৩ হাজার কোটা দেয়ার জন্য ঢাকাস্থ সৌদি দূতাবাসকে অনুরোধ জানিয়ে ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান গতকাল বিকেলে একটি চিঠি দিয়েছেন। ধর্ম মন্ত্রণালয় ও কোটা বঞ্চিত হজ এজেন্সিগুলোর সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY