মক্কার পাহাড়ে বাংলাদেশী হাজীদের দুর্ভোগ

0
123
মক্কার পাহাড়ে  হাজীদের দুর্ভোগ

জুমাবার নিউজ:

পবিত্র ক্বাবা শরীফ থেকে প্রায় ৬ কিলোমিটার দূরে দেউর কুদাই পাহাড়ের ওপর বাড়ীগুলোতে অবস্থানকারী বেসরকারী নতুন কোটার বাংলাদেশী হাজীদের দুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে। প্রতিদিন মক্কার দেউর কুদাই পাহাড়ের ওপরের বাড়ীর হাজীগণ পায় হেঁটে পবিত্র বায়তুল্লাহ শরীফে গিয়ে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করতে পারছেন না।  বর্তমানে অনাহার-অনিদ্রায় মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। গত দু’দিন যাবত খাবারের অভাবে হাজীগণ চিড়া-মুড়ি ও শুধু বিস্কুট খেয়ে দিন কাটাচ্ছেন। স্বল্প সময়ের মধ্যে মক্কার কুদাই পাহাড়ের উপর নতুন কোটার ৫ হাজার ৪৫ জন হাজীর জন্য চড়া দামে বাড়ী ভাড়া করে প্রায় ৬ কোটি টাকা লোপাটের অভিযোগ উঠেছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে হাবের একজন শীর্ষ নেতা এ অভিযোগ তুলেছেন। মক্কাস্থ বাংলাদেশ হজ মিশনের কাউন্সিলর হজ আসাদুজ্জামানের সাথে যোগাযোগ করা হলে কুদাই পাহাড়ের উপর নতুন কোটার হাজীদের বাড়ী ভাড়া নিয়ে ৬ কোটি টাকার লোপাটের অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, হাবের কথা মতোই আমরাই এসব বাড়ী ভাড়া করেছি।  এসব হাজীদের বাড়ী ভাড়ার দুর্নীতির অভিযোগ সর্ম্পকে হাব মহাসচিব বলেন, বাড়ী ভাড়ার দুর্নীতির সাথে হাব জড়িত নয়। যারা ভাড়া করেছে তারাই সে ব্যাপারে ভালো বলতে পারবে।  হাবের সাবেক সভাপতি আলহাজ জামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, এসব হাজীদের বাড়ী ভাড়া আমরা করিনি বাড়ী ভাড়া করেছে সরকার। মক্কাস্থ মিশন এসব বাড়ীর ভাড়ার অর্থ পরিশোধ করেছে।   হাবের সাবেক সভাপতি বলেন, হাবের এ্যাকাউন্টে হাজীগণ আড়াই লাখ টাকা করে জমা দিয়ে এসেছে। হাব এসব হাজীদের ৭শ’ রিয়াল করে দিয়েছে এখনো অনেকেই তা পায়নি। হাব হাজীদের টাকা দিচ্ছে না তাই তারা না খেয়ে কষ্টে আছে।  দেউর কুদাই পাহাড়ের ওপর ১১নং বাড়িতে ফাল্গুনি এয়ার ইন্টারন্যাশনালের (৭৬৭) কুমিল্লার মুরাদনগরের হাজী মাসুদুর রহমান টেলিফোনে কান্নাজড়িত কণ্ঠে ইনকিলাবকে বলেন, গত দু’দিন যাবৎ আমাদের খাবারের টাকা দিচ্ছে না এজেন্সি। আরিফ নামের গ্রুপ লিডার বলেছে ৭শ’ রিয়াল করে যে টাকা দিয়েছে তা’ শেষ হয়ে গেছে। তিনি বলেন, মুরাদনগরের হাজী মো. ইসমাইল হোসেন, এ টি এম ফজলুল হক, মাওলানা আব্দুল বারী, আলী মিয়া, জসিম উদ্দিন এবং ৫ জন মহিলা হাজীসহ ১৩ জন হাজী উক্ত বাড়িতে চরম হতাশায় দিন কাটাচ্ছেন।
সূত্র: দৈনিক ইনকিলাব

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY