প্রিয়নবীর শান্তির উদ্যোগসমূহ

0
193

প্রিয়নবীর শান্তির উদ্যোগসমূহ

হেলফুল ফুযুল প্রতিষ্ঠা
উদ্যোগ : ফুজার যুদ্ধের পর হারাম মাস যিলকদ হেলফুল ফুযুল গঠিত হয়।
অংগীকার: সমবেতরা পরস্পর এ মর্মে অংগীকার করলেন, মক্কায় সংঘটিত যে কোনো প্রকার যুলুম অত্যাচার প্রতিরোধ করবেন। এ সমাবেশে রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-ও উপস্থিত ছিলেন।

কাবার পুনর্নির্মাণ এবং হাজারে আসওয়াদের বিরোধ মীমাংসা
নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের বয়স যখন পঁয়ত্রিশ বছর, সে সময় কোরায়শরা নতুন করে কাবা ঘর নির্মাণের কাজ শুষ্প করে।  ইমারত যখন হাজারে আসওয়াদ পর্যন্ত ওঠে তখন ঝগড়া বাধলো, এ পবিত্র পাথর যথাস্থানে স্থাপনের মর্যাদা কে লাভ করবে? চার পাঁচ দিন যাবত এ ঝগড়া চলতে থাকে। যে মোহাম্মদ (সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম)। এর ফয়সালা বিবদমান গোত্রস্পলোর সকলেই এতে সন্তুষ্ট হয়, কারো কোনো অভিযোগ রইলো না।

মদীনা সনদ
সময়: ৬২৪ খস্ট¢াব্দে
মদীনার এ বিভিন্ন সম্পন্দদায়ের লোকদের মধ্যে তখন সদ্ভাব ছিলো না।  ফলে মদীনার রাজনৈতিক ও সামাজিক পরিস্থিতি খুবই জটিল ও শোচনীয় হয়ে পড়ে। মদীনা সনদের শুষ্পতে ষ্ক্রবিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম্ লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। এর প্রস্তাবনায় উল্লেখ করা হয়েছে যে, মদীনা সনদ আল্লাহর রসূল হযরত মোহাম্মদ (স.) কত™র্£ক প্রদত্ত এবং বিশ^াসীগণ, কোরায়শ মুসলিমগণ, ইয়াসরেবের মুসলিমগণ এবং তাদের যারা অনুসরণ করেন

হোদায়বিয়ার সন্ধি
(যিলকদ, ষষ্ঠ হিজরী)
হোদায়বিয়ার সন্ধির মাধ্যমে মুসলমানরা তাদের উষ্কেশ্য লক্ষ্য পুরোপুরি অর্জনে সক্ষম হয়েছে। তাও এমনভাবে হাসিল হয়েছে, অনেক সময় যুদ্ধে সুস্পষ্ট বিজয় অর্জন সত্ত্বেও তা লাভ হয় না। এ স্বাধীনতার কারণে মুসলমানরা দাওয়াত ও তাবলীগের ময়দানে অসাধারণ সাফল্যলাভে সক্ষম হয়েছে। এ সন্ধির আগ পর্যন্ত মুসলমানদের সৈন্য সংখ্যা কখনোই তিন হাজারের বেশী ছিলো না, সে সংখ্যাই দুই বছরের মধ্যে মক্কা বিজয়ের প্রাক্কালে দশ হাজারে উন্নীত হয়েছে।
মক্কা বিজয়ের পর ক্ষমা

মক্কা বিজয়ের পর রাসূল (স) বললেন, হে কোরায়শ, তোমাদের কি ধারণা, আমি তোমাদের সাথে কেমন ব্যবহার করবো বলে তোমরা মনে করো? সবাই বললো, আপনি ভালো ব্যবহার করবেন, এটাই আমাদের ধারণা। আপনি দয়ালু ভাই, দয়ালু ভাইয়ের পুত্র। এরপর তিনি বললেন, তাহলে আমি তোমাদের সে কথাই বলছি, যে কথা হযরত ইউসুফ (আ.) তার ভাইদের বলেছিলেন, ষ্ক্রলা তাছরিবা আলাইকুমুল ইয়াওম্Ñ আজ তোমাদের বিষ্পদ্ধে কোন অভিযোগ নেই, তোমরা সবাই মুক্ত।

মূল: আল্লামা সফিউর রহমান মোবারকপুরি, অনুবাদ খাদিজা আখতার রেজায়ী

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY