বিশ্বের বহুল পঠিত ৫ টি বই

0
365
OLYMPUS DIGITAL CAMERA

বিশ্বের বহুল পঠিত ৫ টি বই

০১. মহাগ্রন্থ আল কোরআন:

ভাষা আরবি, ২৩ বছর ধরে আল্লাহ তায়ালার বানী সম্বলিত এই গ্রন্থ আল্লাহ তাআলার ফেরেশতা জীবরাইল(আ) পৃথিবীতে বহন করে এনেছেন, মহান আল্লাাহ তাআলার পক্ষ থেকে শেষনবী হযরত মোহাম্মদ (স) এর উপরঅবতীর্ণ হয় এই গ্রন্থ। এটা মুসলিমদের ধর্মগ্রন্থ হলেও কোরআনের নিজস্ব ভাষ্যমতে এটা সমগ্রমানবজাতির জন্য একটি গাইড হিসেবে প্রেরিত। প্রথম মুদ্রিত প্রকাশ ১৭২০ সাল, হামবুর্গ।পবিত্র কোরআনের আরবি ভার্সনটাই পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশী বিক্রিত গ্রন্থ। কারণ পৃথিবীর সব দেশেরমুসলিমরা এই গ্রন্থ আরবি ভাষায় পাঠ করে থাকে। বিশ্বব্যাপী প্রায় ১০ হাজার পেশাদার ও অপেশাদারপ্রকাশক এটি প্রকাশ করে থাকে প্রতি বছর বিভিন্ন দেশের প্রকাশনা থেকে প্রায় ২ কোটি এবংবিক্রয় ১ কোটি ৫ লাখ ছেড়ে যায়। বাকী কপি বিভিন্ন দেশে বিনামূল্যে বিতরণ করা হয়। অনুবাদিতকোরআনসহ হিসেব করলে এই সংখ্যা ২ কোটি ৫ লাখ ছাড়িয়ে যাবে। ১৭৮৭ সালে রাশিয়ার সেন্টপিটাসবার্গ শহরে মাওলানা ওসমানের এই কোরআন মুদ্রণ ছাপার পর থেকে হিসেব করলে গত আড়াইশ বছরবা সাত প্রজন্মে এর একটা আনুমানিক সংখ্যা দাড়াবে ১৫শ কোটি এর মতো। এই হিসাবঅনুবাদিত কোরআন এবং হাতে লেখা কোরআন ছাড়া। বিভিন্ন প্রকাশনা সংস্থা বিচ্চিন্ন ভাবেবিক্রি করার কারণে ইউকিপিডিয়া বা অন্য কোথাও এর কোনো সঠিক হিসেব নেই।

০২. বাইবেল: ইংরেজী:

ইতিহাস থেকে জানা যায় খোদাইকৃত বাইবেল প্রথম মুদ্রিত প্রকাশ ১৪৫০ সালে । যদিও তা পুরোঅংশ ছিলো না। মুদ্রণ যন্ত্র আবিস্কারের আগে ছাপ দেয়া বইবেল ২০,৩০,৪০ এরকম আংশিক পৃষ্ঠা আকারেছাপা হয়। বর্তমান বিশ্বে বিক্রয় সংখ্যার দিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে খ্রিষ্টানদের ধর্মগ্রন্থবাইবেল এর ইংরেজী অনুবাদ। ইসলাম ধর্মে একে বলা হয় ইনজিল কিতাব। কোরআন অনুসারে এটিআল্লাহর নবী ঈসা মাসীহ (আ) এর উপর নাযিল হয়। যদিও ছাপা ও বিতরনের দিক থেকে এটি কোরআনেরচেয়ে অন্তত ১০ গুণ বেশী হবে। কিন্তু সারা বিশ্বে এটি বিনামূল্যে বিতরণ করা হয় বিধায় বিক্রিরসংখ্যা কোরআন এর চেয়ে কম। এটিও উইকিপিডিয়া বা গিনেজবুকের হিসেবে নেই। তবে সাধারণতবিভিন্নভাবে বিভিন্ন পাবলিশারদের বাইবেল বিক্রির সংখ্যা বছরে কোটি এর মতো এবং সর্বমোটছাপা ৪কোটি ৫০ লাখ থেকে ৫ কোটি বা তারও বেশী হতে পারে। এ যাবত প্রকাশিত বাইবেলের সংখ্যাদাড়াবে ৫০ হাজার মিলিয়ন কপি।

০৩. সীরাতুন্নবী (স):

সীরাতুন্নবী আমাদের প্রিয়নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয় সাল্লামের জীবনী। কোনো মানুষ সেমুসলিম হোক কিংবা অমুসলিম হোক ইসলামকে জানার জন্য তার ৩টি বিষয়ে জ্ঞান থাকা চাই (১)মহাগ্রন্থ আল কোরআন (২) প্রিয়নবীর বিশুদ্ধ হাদীস সমূহ (৩) প্রিয়নবীর কর্মময় ও দৃষ্টান্তমূলকজীবনী। এই কারণে ইসলাম অনুসারীগণ কোরআনের মতোই বহুল পঠিত গ্রন্থ হিসেবে বেছে নিয়েছেপ্রিয়নবীর জীবনীকে। আরো দুটো কারণে সীরাতগ্রন্থ বিশ্বজুড়ে প্রসারিত হয়েছে। প্রথমত হাদীসগ্রন্থ সংকলনের আগেই সীরাত গ্রন্থ রচনার প্রচলন শরু করেছে ইসলামী পন্ডিতগণ। দ্বিতীয়ত ভাষাগতবাধ্যবাধকতা না থাকা। যেমন কোরআন ও হাদীস দীর্ঘদিন অন্যভাষায় অনুবাদ হয়নি আর সীরাতগন্থেরক্ষেত্রে এই বাাঁধাটি ছিলনা। ফলে এটি ব্যাপকভাবে মুসলিম বিশ্বে ছড়িয়ে যায়। তবে এ যাবত পঞ্জাশহাজারের বেশী সীরাতগ্রন্থ বিভিন্ন ভাষায় লেখা হয়েছে বলে ধারণা করা হয়। প্রতিটি গ্রন্থের লেখক ওধারাবিবরনী আলাদা বলে প্রতিটি বইকে আলাদা বিবেচনা করলে হয়তো কোনো একটি বই এই সেরাপাঁচে আসবেনা। তবে যেহেতু বইয়ের বিষয়বস্তু ও তথ্য প্র্ধাসঢ়;য় এক এজন্য আমরা সব সীরাতুন্নবীকেঅভিন্ন বিবেচনা করলে বাইবেলের পরই সবচে বেশী বিক্রিত এবং বেশীপঠিত হ্রন্থের স্থান দিতে হবে এইগ্রন্থকে। এমন কোনো শিক্ষিত মুসলিম পাওয়া যাবেনা যিনি কখনো কোনো সীরাত পড়েন নি। বছরেঅন্তত ৫০ লাখ সীরাতগ্রন্থ বিক্রি হয় বিশ্বজুড়ে। এ যাবত কালের বিক্রিত ও মুদ্রিত সীরাতগ্রন্থেরসংখ্যা হবে আনুমানিক ২২০ কোটির মতো।

০৪. শ্রীমৎভগবত গীতা:

সর্বাধিক বিক্রিত গ্রন্থ তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে শ্রীমৎভগবত গীতা, হিন্দু ধর্মে বেদ ওমহাভারত নামে আরো ধর্মগ্রন্থ থাকলেও সবচেয়ে বেশী পঠিত গ্রন্থ গীতা। গীতার ক্ষেত্রেও একই কথাপ্রযোজ্য। তবে সংখ্যার বিষয়ে গীতার বেলায় মহানবী (স) এর জীবনীগ্রন্থের মতো বিভিন্ন ভাষায়মুদ্রিত হিসেবকে অর্ন্তভ’ক্ত করে বলা যায় বছরে বিশ্বজুড়ে ৩০ লাখ গীতা বিক্রয় হয়। ভারতের কয়েকশ ভাষায়এটি ১৮০ কোটির বেশী গীতা প্রকাশিত হয়েছে বলে একটা খসড়া হিসেব করা যেতে পারে। এই হিসেবঅবশ্যই গত ৩শ বছরের অর্থাৎ মুদ্রণ যন্ত্র আবিষ্কার হওয়ার পরের।

০৫. বোখারী শরীফ:

ইমাম বোখারীর এই অনন্য সংকলন মুসলমানদের কাছে বেশ জনপ্রিয়। হাদীসগ্রন্থের মধ্যে ৬টিবিখ্যাত গ্রন্থ রয়েছে যেগুলোকে বিভিন্ন বিচারে সঠিক ও নির্ভুল বলে গন্য করা হয়। এর মধ্যে সবচেয়েবেশী বিক্রি হয় প্রথম হাদীস গ্রন্থ সহীহুল বোখারী। কোনো মুসলিম যদি হাদীসের একটি বইকিনেন বেশীরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় সেটা হয় বোখারী শরীফ। বর্তমান বিশ্বে বিভিন্ন ইসলামিকবুকশপে টপচার্ট দেখলে এই কথার সত্যতা পাওয়া যাবে। এই সময়ে আনুমানিক বিশ্বের বিভিন্ন ভাষায়মিলিয়ে এই বইয়ে বছরপ্রতি বিক্রির সংখ্যা ২০ লাখের মতো এবং এ যাবত বিক্রির সংখ্যা ৫০ কোটি এরবেশী হবে।

-জাহাঙ্গীর আলম শোভন

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY