আল কোরআন একাডেমী লন্ডনের বিশ্বব্যপি ফ্রি কোরআন বিতরণ কর্মসূচী

0
81

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম

সমাপ্ত প্রশংসা আল্লাহ তায়ালার জন্যে, যিনি মানুষ সৃষ্টি করে এমনিতেই দুনিয়ায় ছেড়ে দেননি। দুনিয়াতে সুন্দর জীবন যাপন পদ্ধতি ও শিক্ষা দিয়েছেন। যুগে যুগে পাঠিয়েছেন আম্বিয়ায়ে কেরাম ও আসমানীগ্রন্থ। এ থেকে মানুষ সত্যের দিশা পেয়ে সুসভ্য জাতিতে পরিণত হয়েছে। অনেকে এসব প্রত্যাখ্যানও করেছে। ফলে তারা অসভ্যতার নিকষ আধারে নিমজ্জিত হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় সর্বশেষ নবী হযরত মোহাম্মদ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সর্বশেষ ও চিরন্তন আসমানীগ্রন্থ-‘আল কোরআন’ নিয়ে শুভাগমণ করেন। তিনি তাঁর ৬৩ বছরের জীবনে মানবতার অনন্য শিক্ষক হয়ে তাদের কাছে কোরআনের বাণী পৌঁছে দিয়েছেন। যাবার বেলায় উম্মতকে নির্দেশ দিয়েছেন- তোমরাও কেয়ামত পর্যন্ত আগত সব মানুষের কাছে এটা পৌঁছে দাও। তিনি আরো বলেন-

‘আমি তোমাদের কাছে দু’টো জিনিস রেখে যাচ্ছি, যতোদিন তোমরা এটা আঁকড়ে ধরে থাকবে ততোদিন পথহারা হবে না। একটি হলো ‘কোরআন’ আর অন্যটি ‘রসূলের সুন্নাহ’।

সুতরাং কোরআন-হাদীস মানবতার মুক্তি সনদ। বিশ্বশান্তি ও নিরাপত্তার গ্যারান্টি নিয়েই এ কোরআন অবতীর্ণ হয়েছে। মানুষের সমূহ সমস্যার সমাধান এ কোরআনেই রয়েছে। যা সত্য ও নির্ভুল।

আল্লাহর বাণী ছড়িয়ে যাবে বিশ্বময় 

বিদায় হজ্জের ভাষণে মানবতার মুক্তিদূত হযরত মোহাম্মদ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এ নির্দেশই দিয়েছেন। ‘আল কোরআন একাডেমী লন্ডন’ প্রিয়নবীর (সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) এ নির্দেশের গুরুত্ব উপলদ্ধি করে ২০১০ সালে সর্বপ্রথম বাংলাভাষী মানুষের কাছে বাংলা অনুবাদ সহ কোরআন ফ্রী বিতরণ প্রকল্প হাতে নেয়। আল্লাহর অশেষ মেহেরবানীতে এ প্রকল্প সফল ভাবে পরিচালিত হয়ে আসছে। আলহামদুলিল্লাই অক্টোবর-২০১৬’ পর্যন্ত প্রায় ৭,০০,০০০ কপি সহজ সরল বাংলা অনুবাদ সহ কোরআনুল করীম ফ্রী বিতরণ করা হয়েছে। বাংলাদেশ সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বাংলাভাষী মানুষেদের হাতেই কোরআনের এ কপিগুলো পৌঁছে দেয়া হয়েছে। নেপালী অনুবাদ সহ কোরআন ছাপিয়ে এ পর্যন্ত নেপালী ভাষাভাষী মানুষের হাতে প্রায় ২৫০০০ কপি কোরআন বিতরণ করা হয়েছে। ২০১৬ সালে ইংরেজী অনুবাদ সহ কোরআন ছাপিয়ে এ পর্যন্ত প্রায় ১০,০০০ কপি কোরআন বিতরণ করা হয়েছে। ‘উর্দূ অনুবাদ সহ কোরআন’ ছাপার দ্বারপ্রান্তে।

বিশ্বে কোরআন বিতরণ সংস্থা সমূহ

বিনামূল্যে বিশ্বব্যাপি কোরআন বিতরণ সংস্থা বলতে, সৌদী সরকারী সংস্থা- ‘কিং ফাহাদ কোরআন প্রজেক্ট’-ই আমরা এতোদিন জানতাম। সৌদি এ সংস্থাটি বিশ্বের প্রায় প্রত্যেক ভাষায় অনুবাদ সহ কোরআন ছাপিয়ে বিনামূল্যে বিতরণ করে থাকে। এটাই বিশ্বের প্রধান কোরআন বিতরণ সংস্থা। এমনিতে বিভিন্ন মুসলিম দেশে আঞ্চলিক ভাবে কোরআন বিতরণকারী ছোটো ছোটো অনেক সংস্থা কাজ করছে, কিন্তু বিশ্বব্যাপি ফ্রী কোরআন বিতরণকারী সংস্থার অনুসন্ধান করলে আমরা দেখতে পাই, দু’টো প্রতিষ্ঠানই দুনিয়ার সর্বত্র বিনামূল্যে কোরআন বিতরণের গুরুদায়িত্ব আঞ্জাম দিয়ে চলেছে।

১. কিং ফাহাদ কোরআন প্রজেক্ট-সৌদি আরব

২. আল কোরআন একাডেমী লন্ডন

এক সময় তুর্কিস্তানে এমন একটি প্রতিষ্ঠান ছিলো। যারা শুধু ‘কোরআন মজীদ’ ফ্রী বিতরণ করতো। এখন সে প্রতিষ্ঠানের তেমন কোনো কার্যক্রম নজরে পড়ে না। আল্লাহ তায়ালা ‘কিং ফাহাদ কোরআন প্রজেক্টের’ মতো আল কোরআন একাডেমী লন্ডনকেও কবুল করুন। মুসলিম অমুসলিম সবার কাছে কোরআনের দাওয়াত পৌঁছে দেয়ার কাজে ‘আল কোরআন একাডেমী লন্ডন’-এর হাতকে আরো শক্তিশালী করুন! আমীন!!

আল কোরআন একাডেমী লন্ডনের কোরআন বিতরণ

‘আল্লাহর বানী ছড়িয়ে দিন বিশ্বসময়’ স্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে আল কোরআন একাডেমী লন্ডন বিশ্বের ঘরে ঘরে কোরআনের বাণী পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে অবিরাম কাজ করে যাচ্ছে। ইউরোপের বিভিন্ন দেশ, ভারত, নেপাল, মালোয়েশিয়া ও বাংলাদেশে ফ্রী কোরআন বিতরণ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। ২০০৮ সাল থেকে ২০১৬ পর্যন্ত ছয় লক্ষ ছয় হাজার সাতশো কপি কোরআন বিতরণ করা হয়েছে। মে- ২০১৬ থেকে সেপ্টেম্বর-২০১৬ পর্যন্ত শুধু বাংলাদেশে বাংলা অনুবাদ সহ ফ্রী কোরআন বিতরণ করা হয়েছে- ১৯৩৪২ কপি। এর একটি বিবরণ নিম্নে দেয়া হলো-

জেলাভিত্তিক বিবরণ

সিলেট  ৮,৭৩৫, মৌলভী বাজার ২,৪১০, কুমিল্লাহ ২৫০,  ঢাকা ৬৭০, হবিগঞ্জ ১,৭৬৫, সাতক্ষীরা ৫০, চৌমুহনী ৫০, চট্টগ্রাম ৭৫০, বরিশাল ২৭৫,  নোয়াখালী ৬৫০, ঠাকুরগাঁ ২৫০,সিরাজগঞ্জ     ৫৬০, বি-বাড়ীয়া ২০০, সুনামগঞ্জ ৪৫০, লক্ষীপুর ৫৫০, গাইবান্ধা ১,০০১, পটুয়াখালী   ৫০, ফেনী ১৫০,  বগুড়া ৫০, মানিকগঞ্জ ১০০, নাটোর ১২৫, শরীয়তপুর     ১০১, খুলনা ১৫০, চাপাই নবাবগঞ্জ ১০০ কপি সহ আরো অনেক জায়গায় হাজার হাজার কপি বিতরণ করেছে ।

আসুন আল-কোরআন একাডেমীর হাতকে আরো শক্তিশালী করি 

ফ্রী কোরআন বিতরণকারী সংস্থাগুলোর দ্বিতীয় বৃহত্তম সংস্থা- ‘আল কোরআন একাডেমী লন্ডন’। বিশ্বের ঘরে ঘরে আল্লাহর বাণী ছড়িয়ে দেয়ার কাজে আল  কোরআন একাডেমী লন্ডন নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এটা একটা বেসরকারী সেবামূলক প্রতিষ্ঠান, জনসাধারণের দানের ভিত্তিতে সংস্থাটি তার লক্ষের পানে ছুটে চলেছে। কোরআন বিতরণ কার্যক্রম সাদকায়ে জারিয়ার অন্তর্ভুক্ত একটি অতি পূণ্যময় কাজ। এ কাজে আমি আপনি সবাই অংশগ্রহণ করতে পারি। ফ্রি কোরআন বিতরণ প্রকল্পে অংশগ্রহণের কয়েকটি পলিসি রয়েছে :

ক. ফ্রেন্ডস অব কোরআন

খ. কোরআন ৩৬৫

গ. লাইট হাউজ

ঘ. কোরআন ক্যাম্প।

এসব পলিসির যে কোনো একটিতে অংশগ্রহণ করে আমি আপনি সবাই এ প্রকল্পের সোয়াবের ভাগিদার হতে পারি। আপনি এগিয়ে আসুন! আল কোরআন একাডেমীর হাতকে শক্তিশালী করুন।

        কোরআন পড়ুন কোরআন বুঝুন, কোরআন দিয়ে জীবন গড়ুন এবং কোরআনের বানী অন্নের কাছে ছড়িয়ে দিন। 

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY